আপনার অ্যান্ড্রয়েডের সিপিইউ,র‍্যাম, ব্যাটারি ভিসুয়ালাইজ জন্য ৫টি সেরা অ্যাপ্লিকেশন

বর্তমানে অধিকাংশ মানুষেই অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে ।  কিন্তু অধিকাংশ ব্যবহারকারী  তাদের ফোনের ব্যাটারি,র‍্যাম,স্টোরেজ,সিপিইউ নিয়ে চিন্তিত থাকে। তাই এই চিন্তুা দূরীকরণে  এখানে এমন কিছু অ্যাপ্লিকেশন বর্ণনা করতে যাচ্ছি  যা আপনার অ্যান্ড্রয়েড এর জন্য খুব ই গুরুত্বপূর্ণ এবং উপকারীও বটে। এই অ্যাপ আপনার ফোনের গুরুত্বপূর্ণ খুটিনাটি  যেমন ব্যাটারি,র‍্যাম ব্যবহার এবং সিপিইউ লেভেলের মতো গুরুত্বপূর্ণ অংশ কে ভিসুয়ালাইজ করে থাকে।            চলুন  জেনে নেওয়া যাক আপনার অ্যান্ড্রয়েড এর জন্য বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন এই ৫টি অ্যাপ্লিকেশন এর বর্ণনা ।

1.Energy Bar

এই অ্যাপ্লিকেশন এর সাহায্যে আপনি আপনার ফোনের ব্যাটারি লেভেল সম্পর্কে জানতে পারবেন একটি কালারফুল লাইনের মাধ্যমে যা ফোনের স্ট্যাটাস বার এর  উপর শো করবে। এটি দ্বারা আপনি ফোনের সম্পূর্ণ ব্যাটারি লাইফ সম্পর্কে জানতে পারবেন। এই বৈশিষ্ট্য বাদেও এই অ্যাপের সেটিংসে গিয়ে   অনেক কিছু পরিবর্তন করতে পারবেন। যেমন  স্ট্যাটাস বার আকার, ধরন, অবস্থান ইত্যাদি পরিবর্তন করতে পারবেন।   আপনি ডিসপ্লে স্কিন পরিবর্তন করতে পারবেন। সেই সাথে  স্ট্যাটাস বার এর স্টাইল পরিবর্তন করতে পারবেন। আপনি যদি আপনার ফোনে গান কিংবা গেমস খেলেন কিংবা অন্য কোনো কাজ করেন  তাহলেও আপনি আপনার অবশিষ্ট ব্যাটারি জানতে পারবেন  ঐ বারের মাধ্যমে।

2.Powerline

এই অ্যাপ অনেকটা এনার্জি বার অ্যাপস এর মতোই কার্যকারী। একই ভাবে এটি এনার্জি বারের মতো  কালারফুল স্ট্রিপ শো করে থাকে। তবে এনার্জি বারের চেয়ে এর কিছু   এডিশনাল কার্যকারীতা রয়েছে। এই অ্যাপ দিয়ে আপনি র‍্যাম,ওয়াইফাই,সিপি ইউ,স্টোরেজ,ব্যাটারির আলাদা আলাদা টেম্পারেচর প্যারামিটার যুক্ত করতে পারবেন। এছাড়াও  আপনি অ্যালার্ম,মেমোরি, ফোন  স্টোরেজে আলাদা আলাদা ইন্ডিকেটর যোগ করতে পারবেন। এবং স্থান পরিবর্তন করতে পারবেন। এটি আসলেই নান্দনিক যদি আপনার মনের মতো হয়।

3.Tinycore

এই অ্যাপটি যদিও  বাকী অ্যাপসের মতো  কিন্তু এর মধ্যে এডিশনাল একটি বৈশিষ্ট রয়েছে তা হলো CAM. এই অ্যাপসের সাহায্যে  আপনি র‍্যাম, সিপিইউ  ব্যাটারি  ব্যবহার ভিসুয়ালাইজ করতে পারবেন। এটির সাহায্যে আপনি ডিফল্ট ইন্ডিকেটর ব্যবহার করতে পারবেন। এর পাশাপাশি আপনি নিজস্ব  কাস্টমাইজ ইন্ডিকেটর ও ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু  ফ্রি ভার্সনে আপনি শুধুমাত্র দুটি ইন্ডিকেটর ব্যবহার করতে পারবেন। এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন প্রফাইল তৈরি করে তাদের  নাম এবং বর্ণনা দিতে পারেন। এটি দ্বারা আপনি লেআউট করতে পারেন। আপনার পছন্দানুযায়ী  লেআউট এর  আকার,আয়তন পরিবর্তন করতে পারবেন।  এবং যদি আপনি এর মাধ্যমে স্ট্যাক  ওরিয়েন্টরশন পরিবর্তন করতে চান তাহলে এর জন্য প্রো ভার্সন দরকার।

4.Battery Monitor

অ্যাপসের নাম ব্যাটারি মনিটর দেখে হয়তো ভেবেই নেওয়া যায় এটি শুধু ব্যাটারি সর্ম্পকিত। কিন্তু  আসলেই তা নয় এটি উইন্ডোজ, উইজেট  আকারে র‍্যাম,সিপিইউ ব্যবহার সর্ম্পকিত তথ্য দিয়ে থাকে। উইন্ডো বা উইজেট ট্যাপ করে, আপনি ব্যাটারি, র‍্যাম, এবং সিপিইউ ব্যবহারের আরও বিস্তারিত তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারেন। যদি আপনি আপনার ডিভাইসের র‍্যাম ক্লিয়ার করতে চান তাহলে আপনি এই অ্যাপের ট্যাপ বোষ্টে ট্যাপ করে এটি করতে পারেন ইজিলি।

5. Navbar Apps

এটি শেষ কিন্তু নূন্যতম নয়।  এই অ্যাপ আপনার কাস্টমাইজ নেভিগেশন দেখতে  এসিস্ট করে থাকে। এই অ্যাপ ব্যবহারের সাথে সাথে আপনি কাস্টমাইজ যুক্ত নেভিগেশন ডাউনলোড করতে পারবেন।কাজের সাথে সাথে ফোনের ব্যাটারি লেভেল ও দেখতে পারবেন। এই অ্যাপের তেমন উল্লেখিত বৈশিষ্ট না থাকলেও এই অ্যাপ নিশ্চিন্তে একটি ক্ষমতাবান অ্যাপ যে কারণে  আপনি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন এই অ্যাপস।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *